বাংলাদেশি তরুণের বিশ্বজয়

ডেস্ক রিপোর্ট। 

বাংলাদেশি এক তরুণকে ন্যাটো সার্টিফাইড  বিশ্ব বিখ্যাত ফ্রান্সের সমরাস্ত্র যানবাহন ম্যানুফ্যাকচারার এবং  সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান Arquus | The historical partner of armies এর পক্ষ থেকে এশিয়া রিজিয়নের “GoodWill Ambassador” হওয়ার প্রস্তাব পেয়েছেন.  এটা বাংলাদেশীদের একজন তরুণের গল্প যিনি স্বপ্ন দেখেন বাংলাদেশের তরুণরা বিশ্ব জয় করবে এবং বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে তাদের মেধার ব্যবহার সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেবে তেমনি একজন তরুণ ইঞ্জিনিয়ার কক্সবাজার জেলার আতিকুল ইসলাম কাইফ (কুতুবী),   তিনি পড়াশোনা করেছেন ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে । কিন্তু  চাকুরী জীবনে তার মেধাকে কাজে লাগান অন্য এক পেশায় (ICB Tendering & Project),  এরই ধারাবাহিকতায় তিনি কাজ শুরু করেন ২০১৩ সালের দক্ষিণ কোরিয়ার “ডেইস্যান” নামক এক কোম্পানিতে, সেখানে তিনি  দক্ষিণ কোরিয়ার গভর্নমেন্ট প্রকিয়রমেন্ট এবং বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহীনীর প্রভিশনে কাজ করার সুযোগ পান। সেই সুবাধে তিনি বাংলাদেশ আর্মি হেডকোয়ার্টার , নেভী হেডকোয়ার্টার , র‍্যাব  হেড কোয়ার্টার , পুলিশ হেডকোয়ার্টার, ডিজিডিপি, কোস্টগার্ড এবং এয়ারফোর্সের বেইজ রিলেটেড বিভিন্ন আন্তর্জাতিক দরপত্রে বিশ্বের বিভিন্ন প্রিন্সিপালের প্রতিনিধি হয়ে বাংলাদেশ থেকেই বিড করতেন। উল্ল্যেখ্য যে এয়ারফোর্সের তিনটি হেলিকপ্টার ক্রয়ের আন্তর্জাতিক দরপত্রে তার দেওয়া তিনটি প্রফোজালের মধ্যে দুটি আরএফপি বাংলাদেশ সরকারের ডিজিডিপি ২ টি হেলিকপ্টার ক্রয়ের প্রস্তাব  গ্রহণ করে এবং বাংলাদেশ আর্মিতে বিদেশী বিভিন্ন প্রিন্সিপালের ডমেস্ট্রিক প্রতিনিধি হয়ে সরবরাহকৃত মালামাল এর লংজিবিলিটি কারনে অল্প সময়ে সুনাম ও অর্জন করেন অল্প সময়ে। এমনকি  পোর্ট ল্যান্ডিং ইন্সপেকশনে চিটাগং এবং মংলা পোর্ট এ তিনি নিজেই উপস্থিত থাকেন। দেশের ফিজিক্যাল টেন্ডার, আন্তর্জাতিক দরপত্র এবং ই-জিপি তে তার প্রিনিধিত্ব অনেক সফলতার সাথে দেশের বিভিন্ন সরকারী খাতে সেবা দিয়ে আসছেন সোনার বাংলা বিনির্মানে। দেশ তখন ই উন্নতি হবে যদি দরদাতারা দেশের উন্নতি চাই ত্বরা মতে। তাই তিনি সব-সময় বিদেশী প্রন্সিপাল বেঁছে বেঁছে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন বলে জানান।  কারন এসব পণ্যের ব্যবহারের উপর ভিত্তি করে আমাদের দেশ উন্নয়নের শিখরে পৌছাবে। তিনি বাংলাদেশ পুলিশের ইউএন মিশনের জন্য আধুনিক সমরাস্ত্র যানবাহন ক্রয়ের এক প্রফোজাল এ ARMOURED PERSONAL CARRIERS , SPECIAL FORCES & COUNTER TERRORISM-HIGUARD, VAB MK 3, PATSAS, SABRE, TORPEDO, AREG, MIDS, BASTION, FORTRESS, COMBAT RECO & PATROL SHERPA LIGHT আরএফপি প্রস্তাব রাখেন।

তিনি চায়নিজ নাম্ভার ওয়ান এস ইউ ভি জায়ান্ট “হ্যাভাল” নিয়েও  কাজ করেছেন বাংলাদেশ এবং মিয়ানমারে, বাংলাদেশে সরকারী অফিসারদের ব্যবহৃত  গাড়ী গুলি তারই সরবরাহ করা। রুপপুর নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্ল্যান্টে তার সরবরাহকৃত গাড়ীর সংখ্যা অনেক। চায়না-রাশান চেইনের ইনভেস্টমেন্টর প্রজেক্ট এ চায়নার আধিকত্যার প্রমাণ তিনি রেখেছেন।  সে সময় বসুন্ধরা গ্রুপের টেন্ডারিং এন্ড বিলিং এর ডেপুটি ম্যানেজার হিসেবে এক অফার পান কিন্তু তিনি তা লুফে না নিয়ে নিজের ইচ্ছাশক্তির উপর তার ক্যারিয়ার ছেড়ে দেন। তিনি সবসময় চিন্তা করেন নিজের ইচ্ছাশক্তি যা করতে চায় যখন যেমন , তাকে তেমনি রসদ যুগিয়ে দেওয়াই তার লক্ষ্যে । সেটা যেখানে গিয়ে থামে সেটাই তার ক্যারিয়ার।

বিশ্ব বিখ্যাত সমরাস্ত্র যানবাহন ম্যানুফ্যাকচারার এবং  সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান Arquus | The historical partner of armies  তাদের এক মেইলে তাকে এশিয়া প্যাসিফিক রিজিয়নের গুডোয়িল এম্বাসেডর করার প্রস্তাব দিয়েছেন। আগামী ২০২১ সালে দুবাই ডিফেন্স এক্সপো  তে তাকে এ পদে শুভেচ্ছা দূত হিসেবে নিয়োগ করার প্রস্তাব করেন। উল্ল্যখ্যে এই বছর অনুষ্ঠিত দুবাই ডিফেন্স এক্সপোতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও ভিজিট করেন ।

 

 

তিনি বর্তমানে বাংলাদেশের প্রথম আই এস ও সার্টিফাইড গ্রুপ অব  কোম্পানী, ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন এর অনারারী প্রেসিডেন্ট সাবের হোসেন চৌধুরীর  প্রতিষ্ঠান ” কর্নফুলী গ্রুপ” এ টেন্ডার স্পেশালিষ্ট হিসেবে কর্মরত আছেন।

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *