নির্জন সৈকতের সন্ধানে – কুতুবদিয়া ভ্রমন।

ভ্রমণ ডেস্ক।।

যারা একটু নিরিবিলিতে সমুদ্রপাড়ে সময় কাটাতে চান মূলত তাদের জন্যই কুতুবদিয়া সমুদ্র সৈকত।
সৈকত বলতে আমরা বুঝি কক্সবাজার, সেন্ট মার্টিন বা কুয়াকাটাকে। এগুলোর বাইরে টো টো কোম্পানী এবার ট্রিপ করবে কুতুবদিয়াতে। কুতুবদিয়া কক্সবাজারের পেকুয়াতে অবস্থিত একটি দ্বিপ। এই দ্বীপের আয়তন ৩৬ বর্গ মাইল। বৈশিষ্টের দিক দিয়ে এই দ্বীপে রয়েছে ১৮ কিলোমিটার নির্জন সৈকত, বাংলাদেশের একমাত্র উইন্ডমিল প্রজেক্ট, বাতিঘর ও একটি মাজার।

ট্যুর প্লান
১।
রাতে নন এসি চেয়ার কোচ বাসে চট্টগ্রামে উদ্দেশ্যে যাত্রা।

সকাল ৬ টায় চট্টগ্রাম পৌছে সকালের খাবার খেয়ে বাসে মগনাম ঘাটের উদ্দেশ্যে রওনা দিব। ৩ ঘন্টা পর মগনাম ঘাটে পৌছে ১১ টার দিকে ট্রলারে করে কুতুবদিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দিব। ট্রলারে করে পৌছাতে ২০ মিনিট সময় লাগবে। সমুদ্রবিলাস হোটেলে পৌছে রুমে চেক ইন। হোটেলের রুম থেকে সমুদ্রের দূরত্ব ১ মিনিট। রুমে ব্যাগ রেখে চলে যাব সমুদ্রে দাপাদাপি করতে। দুপুরের খাবার খেয়ে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিয়ে ৪ টার সময় রিজার্ভ গাড়ীতে করে চলে যাবো উইন্ডমিল প্রজেক্ট এলাকাতে। উইন্ডমিলের পাশের সৈকতে গ্যালারীর মত পাথরের বোল্ডার। এখানে বসে সূযাস্ত দেখবো। সূযাস্তের পর গাড়ীতে করে রওনা দিব দরবার ঘাট। সমুদ্রের আধা কিলোমিটার ভিতরে ঘাটটি অবস্থিত। সেখানে রাতে চানাচুর মুড়ি খাওয়া দাওয়া এবং স্থানীয় শিল্পীদের সাথে গান বাজনার আসর। রাত ৯টায় রতের খাবার এরপর হোটেলে ফিরে মন চাইলে ঘুম না চাইলে সমুদ্রবিলাস।

৩।
৮ টায় সকালের নাস্তা। নাস্তা শেষে জীপে করে চলে যাবো বাতিঘর দেখতে। সেখান থেকে ফিরে এসে দুপুরের খাবার খেয়ে ট্রলারে করে কুতুবদিয়া চ্যানেল পাড় হয়ে বাসে করে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা দিব। তিন ঘন্টা বাস জার্নি শেষে রাতের খাবার খেয়ে ঢাকার বাসে করে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা।

৪।
সকাল ৬ টায় ঢাকা পৌছে যাবো।

# হোটেলে একরুমে ৩-৪ জনের থাকার ব্যবস্থা। কাপলদের জন্য আলাদা রুমের ব্যবস্থা আছে।
# সকালে পরটা, ডিম, সবজী
# দুপুরে মাংস, ভর্তা, সবজী, ডাল, ভাত
# রাতে মাছ অথবা মাংস, ভর্তা, সবজী, ডাল ভাত।
# হোটেলে সৌর বিদ্যুতের মাধ্যমে লাইট জ্বলে। মোবাইল চার্জের জন্য পাওয়ার ব্যাংক নিতে হবে। রাতে কিছুক্ষণের জন্য জেনারেটর চলবে।
# ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম নন এসি চেয়ার কোচে যাত্রা। চট্টগ্রাম থেকে কুতুবদিয়া (মগনামঘাট) এস আলম মিনি বাসে যাত্রা।

 

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *